আবুল খায়ের গ্রুপে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২৪ [Abul Khair Group Job Circular]

আবুল খায়ের গ্রুপ নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২৩ প্রকাশিত হয়েছে। বাংলাদেশের বৃহত্তম শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলোর একটি। এটির সদর দপ্তর বাণিজ্যিক রাজধানী চট্রগ্রামে অবস্থিত এবং এর কার্যক্রম বর্তমানে বহু-ব্যবসায় রূপান্তরিত হয়েছে। এটি স্টিল, সিরামিকস,খাদ্যদ্রব্য,সিমেন্ট ও তামাকজাত পণ্য উৎপাদন করে থাকে।

পরিশ্রমী এবং সুস্বাস্থ্যের অধিকারী যেকোন বাংলাদেশী পুরুষ নাগরিক নিম্নোক্ত শর্তাবলী পুরণ সাপেক্ষে উল্লিখিত পদের জন্য প্রার্থী হতে পারবেন। সম্প্রতি প্রকাশিত আবুল খায়ের গ্রুপ নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২৩ র যাবতীয় তথ্য নিচে তুলে ধরা হল। আগ্রহী ও যোগ্য ব্যক্তিদের আবেদন করার জন্য আহব্বান করা হচ্ছে।

আবুল খায়ের গ্রুপ জব সার্কুলার 2023 যাবতীয় তথ্য

প্রতিষ্ঠানের নাম আবুল খায়ের গ্রুপ
চাকরির ক্যাটাগরি বেসরকারি কোম্পানি চাকরি
বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ ১৭ ডিসেম্বর ২০২৩
পদের সংখ্যা নির্দিষ্ট নয়
বয়স সর্বোচ্চ ২৪-৩২ বছর
শিক্ষাগত যোগ্যতা স্নাতক/উচ্চ মাধ্যমিক
আবেদনের মাধ্যম সরাসরি সাক্ষাৎকার
আবেদন ফি ফ্রী
আবেদন শুরু ১৮ ডিসেম্বর  ২০২৩
আবেদন শেষ ১২ জানুয়ারি ২০২৩
অফিসিয়াল ওয়েবসাইটঃ www.abulkhairgroup.com

সরকারি বেসরকারি সব ধরনের চাকরির খবর সবার আগে পাবেন newjobscircular.com ওয়েবসাইটে। তাই যেকোনো ধরনের চাকরির খবর পেতে ভিজিট করুন আমাদের ওয়েবসাইটে। আবুল খায়ের গ্রুপে জব সার্কুলার  সম্পর্কিত যাবতীয় তথ্য দেখতে নিচের ছবিটি লক্ষ্য করুন।

আবুল খায়ের গ্রুপে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ২০২৩

Application Deadline: 12 January 2024 

আবুল খায়ের টোবাকো নিয়োগ ২০২৩ সার্কুলার

আবুল খায়ের টোব্যাকো  কোং লিঃ ওয়াক-ইন-ইন্টারভিউ

আবুল খায়ের টোব্যাকো  কোং লিঃ এর মার্কেটিং বিভাগে তামাকজাত পণ্য বাজারজাতকরণের উদ্দেশ্যে উপযুক্ত বেতনে ওয়াক-ইন-ইন্টারভিউ এর মাধ্যমে কিছু সংখ্যক লোক নিয়োগ করা হবে। পরিশ্রমী এবং সুস্বাস্থ্যের অধিকারী যে কোন বাংলাদেশী পুরুষ নাগরিক নিম্নোক্ত শর্তাবলী পূরণ সাপেক্ষে উল্লিখিত পদের জন্য প্রার্থী হতে পারবেন।

১। পদের নামঃ এসিস্ট্যান্ট মার্কেটিং অফিসার
পদের সংখ্যাঃ নির্দিষ্ট নয়
শিক্ষাগত যোগ্যতাঃ স্নাতকোত্তর
বেতনঃ আলোচোনা সাপেক্ষে

আবেদন প্রক্রিয়াঃ

আগ্রহী প্রার্থীদের নিজ নিজ জীবনবৃত্তান্ত, দুই কপি পাসপোর্ট সাইজ রঙিন ছবি, শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্রের ফটোকপি, জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি, অভিজ্ঞতার সনদ (যদি থাকে) সহ সাক্ষাৎকারের জন্যে উল্লেখিত তারিখ এবং ঠিকানায় উপস্থিত হতে হবে।

সাক্ষাতকারের মাধ্যমে আবেদন

আগ্রহী প্রার্থীদের নিজ নিজ জীবনবৃত্তান্ত, দুই কপি পাসপোর্ট সাইজ রডিন ছবি, শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্র ও জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি সহ সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টার মধ্যে উপরোক্ত ঠিকানায় স্ব-শরীরে উপস্থিত হয়ে সাক্ষাতকারে অংশগ্রহণের জন্যে অনুরোধ করা যাচ্ছে।

সাক্ষাৎকার এর জন্য উপস্থিত প্রার্থীদের কোন প্রকার টি.এ/ডি.এ প্রদান করা হবে না। তবে প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত এবং ১৪ দিনের ট্রেনিং প্রোগ্রাম সম্পন্নকৃত প্রার্থীগণকে কোম্পানীর বিধি মোতাবেক Training Allowance প্রদান করা হবে। অনিবার্য কারণবশতঃ কর্তৃপক্ষ আংশিক বা সকল নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধ করার অধিকার সংরক্ষণ করেন।

ডাকযোগের মাধ্যমে আবেদন

আগ্রহী প্রার্থীদের দুই কপি পাসপোর্ট সাইজ রঙিন ছবি, শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্রের ফটোকপি, জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি এবং অভিজ্ঞতার সনদ সহ নিজ নিজ জীবনবৃত্তান্ত, খামের উপর আবেদনকৃত পদের নাম উল্লেখপূর্বক উল্লেখিত তারিখের মধ্যে উক্ত ঠিকানায় প্রেরণের জন্য অনুরোধ করা যাচ্ছে

।অনিবার্য কারণবশতঃ কর্তৃপক্ষ আংশিক বা সকল নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধ করার অধিকার সংরক্ষণ করেন।

মেইলের মাধ্যমে আবেদন

আগ্রহী প্রার্থীদের “Career@abulkhairgroup.com” বরাবর সাবজেক্ট লাইনে “AMO” লিখে পূর্ণাঙ্গ জীবন বৃত্তান্ত ই-মেইল করার জন্য অনুরোধ করা যাচ্ছে। অনিবার্য কারণবশতঃ কর্তৃপক্ষ আংশিক বা সকল নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধ করার অধিকার সংরক্ষণ করেন।

আবুল খায়ের গ্রুপ সম্পর্কেঃ 

আবুল খায়ের গ্রুপ বাংলাদেশের বৃহত্তম শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলোর একটি। এটির সদর দপ্তর বাণিজ্যিক রাজধানী চট্রগ্রামে অবস্থিত এবং এর কার্যক্রম বর্তমানে বহু-ব্যবসায় রূপান্তরিত হয়েছে। এটি স্টিল, সিরামিকস,খাদ্যদ্রব্য,সিমেন্ট ও তামাকজাত পণ্য উৎপাদন করে থাকে। এটি ১৯৫৩ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। এসব ব্যবসায় এর জন্য প্রচুর পরিমানে বৈদেশিক পণ্য আমদানি করে থাকে এই গ্রুপটি। উল্লেখ্য,আমদানি ও রাজস্ব দেওয়ার শীর্ষে আবুল খায়ের গ্রুপ।

আবুল খায়েরের উত্তরসূরিরা পরে গড়ে তুলে স্টিল মিল, সিমেন্ট কারখানা, চা বাগান, ডেইরি প্রডাক্টসহ অনেক প্রতিষ্ঠান। ১৯৯৩ সালে আবুল খায়ের গ্রুপ স্টারশিপ কনডেন্সড মিল্ক দিয়ে দুগ্ধ খাতে নাম লেখায়। এরপর ১৯৯৬ সালে যোগ হয় স্টারশিপ ফুল ক্রিম মিল্ক পাউডার। ১৯৯৭ সালে আসে মার্কস ফুল ক্রিম মিল্ক পাউডার এবং সিলন চা নিয়ে বাজারে আসে ২০০৪ সালে। দেশের সিমেন্ট খাতের বেশির ভাগ চাহিদা পূরণে সক্ষম আবুল খায়েরের প্রতিষ্ঠান শাহ সিমেন্ট। ১৯৯৩ সালে আবুল খায়ের গরু মার্কা ঢেউটিন দিয়ে ইস্পাত শিল্পে নাম লেখায়। অতিসম্প্রতি তারা বড় ধরনের বিনিয়োগ করেছে একেএস টিএমটি ৫০০ডব্লি¬উ ইস্পাতের রড উৎপাদনে। 

আবুল খায়ের গ্রুপের মালিক

চট্টগ্রামের পাহাড়তলী এলাকায় আবুল বিড়ি কোম্পানি থেকে এ গ্রুপের ব্যবসা শুরু হয়। ১৯৫৩ সালে বিড়ি ব্যবসা দিয়ে যাত্রা হয় গ্রুপটির। ১৯৭৮ সালে এর প্রতিষ্ঠাতা আবুল খায়ের মারা যাওয়ার আগ পর্যন্ত বিড়ি ও ট্রেডিংই ছিল এটির মূল ব্যবসা।